দ্বন্দ্ব সমাসের মূল বিশিষ্ট কি এবং একশেষ দ্বন্দ্ব সমাস কাকে বলে

আজকে আমরা আলোচনা করব দ্বন্দ্ব সমাস কাকে বলে এবং কি কি ? দ্বন্দ্ব সমাসের মুল বিশিষ্ট কি ? এবং একশেষ দ্বন্দ্ব সমাস কাকে বলে । এই পোস্টের নিচে একতা PDF ফাইল পাবেন । যা আপনি ৮০% ডিসকাউণ্টে কিনতে পারবেন এখন । সেরা সমাস শেখার সহজ ও শর্টকাট নিয়ম সহ ।





দ্বন্দ্ব শব্দের অর্থ যুক্ত। যদি ব্যাস বাক্যের দুটি সমস্যা মান পদ থাকে দুটি পদের অর্থ প্রধান হয় এবং সমস্যমান পদ দুটির একটি সংযোজক অব্যয় দ্বারা যুক্ত থাকে তবেই এই রকম সমাস কে বলে দ্বন্দ্ব সমাস। যেমন - জন্ম মৃত্যু = জন্ম ও মৃত্যু ।

এই সমাজ টি যে দুটি সমান পদ নিয়ে গঠিত সমাসবদ্ধ পদটিতে উভয়ের অর্থ গুরুত্বপূর্ণ । অর্থাৎ জন্ম এবং মৃত্যু উভয়ের সমান গুরুত্ব আছে । এই সমস্যা মান পদ গুলি ও সংযোজক অব্যয় দিয়ে যুক্ত । এরকম আর কয়েকটি উদাহরণ - জলকাদা = জল ও কাদা , দেনা পাওনা = দেনা ও পাওনা ।

দ্বন্দ্ব সমাসের দুইয়ের বেশি সমস্যমান পদত্ত পাওয়া যায় যেমন - চব্য চোষ্য লেহ্য পেয় = চব্য, চোষো, লিহ্যা ও পেয় ।

দ্বন্দ্ব সমাসের সমস্যা মান পদ্ধতির বিভিন্ন প্রকৃতি ও তার উদাহরণ গুলো নিচে আলোচনা করা হলো



দ্বন্দ্ব সমাসের বিভিন্ন প্রকৃতি -



(১) সমস্যমান পদ দুটি যখন বিশেষ্য :
উদাহরণ - ধান দ্রব্য = ধান ও দূর্বা , ধর্ম-কর্ম = ধর্ম ও কর্ম ।

(২) সমস্যমান পদ দুটি যখন বিশেষণ
উদাহরণ - ভালো-মন্দ = ভালো ও মন্দ , সাদাকালো = সাদা ও কালো ।

(৩) সমস্যমান পদ দুটি যখন একে অপরের বিপরীতার্থক -
উদাহরণ - আয় ব্যয় = আয় ও ব্যয় , আকাশ-পাতাল = আকাশ ও পাতাল ।

(৪) সমস্যমান পদ দুটি যখন একে অপরের সমার্থক
উদাহরণ - ব্যবসা বাণিজ্য = ব্যাবসা ও বানিজ্য , বলা-কওয়া = বলা ও কওয়া ।

(৫) সমস্যমান পদ দুটি যখন একে অপরের প্রায় সমার্থক
উদাহরণ - গান বাজনা = গান ও বাজনা , দান ধ্যান = দান ও ধ্যান।

(৬) সমস্যমান পদ দুটি যখন অসমাপিকা ক্রিয়া
উদাহরণ - হেসে খেলে = হেসে ও খেলে , দেখেশুনে = দেখে ও শোনে ।

(৭) সমস্যমান পদ দুটি যখন সর্বনাম
উদাহরণ - যা - তা = যা ও তা , যে - সে = যে ও সে ।

(৮) একশেষ দ্বন্দ্ব : সমস্যমান পদ গুলির বহুবচনন্তত একটি মাত্র পদ যখন অবশিষ্ট থাকে । যেমন - আমরা = তুমি ও অামি , তোমরা = তুমি ও সে , আমাদের = আমার ও তোমাদের , তোমাদেরকে = তোমাকে ও তাদেরকে ।

(৯) সমাহার দ্বন্দ্ব : সমস্যমান পদ গুলির প্রতিটির অর্থ প্রধান না হয়ে সমষ্টিগত পদের অর্থ প্রধান হয় ।যেমন - জামাকাপড় = জমা ও কাপড় , ঝড়বৃষ্টি = ঝড় ও বৃষ্টি ।

এছাড়া কোন কোন দ্বন্দ্ব সমাসের ব্যাসবাক্য ক্ষেত্রে কিছু ব্যতিক্রম দেখা যায়
যেমন - দম্পতি = জায়া ও পতি , কুশীলব = কুশ ও লব ।

সমস্যমানপদের শেষপদ থেকে যদি সমস্ত পদ উৎপন্ন হয় তখন তাকে একশেষ দ্বন্দ্ব সমাস বলে। আরও উদাহরণ হতে পারে। সে ও তুমি = তোমরা। জায়া ও পতি = দম্পতি। খেয়াল করুন শেষ পদের সাথে মিল রেখে সমস্ত পদ তৈরী হচ্ছে। এগুলো দ্বন্দ্ব সমাস। তবে একশেষ দ্বন্দ্ব।

কিন্তু যদি উদাহরনটা এমন দেওয়া হয় যে, আমি, তুমি ও সে = আমরা ।তখন কিন্তু শেষপদ “সে” থেকে সমস্ত পদ উৎপন্ন হচ্ছেনা। সবগুলো পদ একসাথে “আমরা” হয়ে যাচ্ছে।

অর্থাৎ নিত্য সমাসের ব্যাসবাক্যের দরকার হয় না।

কাকে দ্বন্দ্ব সমাসের বিপরীত সমাস বলা হয়?
উত্তরঃ বহুব্রীহি সমাস কে দ্বন্দ্ব সমাসের বিপরীত সমাস বলা হয়।


সমাসের সেরা পিডিএফ Download প্রায় বিনামুল্যে ৮০ % ছাড়ে



Post a Comment

0 Comments