Header Ads Widget

Live

6/recent/ticker-posts

অষ্টম শ্রেণীর বাংলা অ্যাক্টিভিটি টাস্ক এর সমস্ত প্রশ্ন এবং উত্তর পার্ট ১ । Class 8 bengali model activity task part 1 । সেইটে সবার চেয়ে শ্রেয়’ – কবির মতে 'সবার চেয়ে শ্রেয়' কী ?

আজকে আমরা আলোচনা করব অষ্টম শ্রেণীর বাংলা অ্যাক্টিভিটি টাস্ক এর সমস্ত প্রশ্ন এবং উত্তর নিয়ে পার্ট ১ 



অষ্টম শ্রেণীর বাংলা অ্যাক্টিভিটি টাস্ক এর  প্রশ্ন এবং উত্তর পার্ট ১


অষ্টম শ্রেণীর বাংলা অ্যাক্টিভিটি টাস্ক এর সমস্ত প্রশ্ন এবং উত্তর পার্ট ১  ।  Class 8 history model activity task part 1.



নীচের প্রশ্নাগুলির উত্তর নিজের ভাষায় লেখাে :



(১) সেইটে সবার চেয়ে শ্রেয়’ – কবির মতে 'সবার চেয়ে শ্রেয়' কী ?


উত্তর :-
বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের 'বােঝাপড়া' কবিতা থেকে আলােচ্য উদ্ধৃতিটি নেওয়া হয়েছে।
জীবনের দুঃখের সাগর পেরিয়ে এই সুখের কিনারায় উঠতে হয়। জীবনে চলার পথে অনেক বাধা বিপত্তি আসে। দুঃখকে অতিক্রম করেই সুখের সন্ধান মেলে। তাই বিপদ এলে বিবেচনা করে এগিয়ে যেতে হয়। নতুবা সামান্য ভুলের কারণে সব ওলট-পালট হয়ে যেতে পারে। সম্পূর্ণ ডুবে যাওয়া বা ধ্বংস হওয়ার সম্ভাবনাও থাকে।তাই সতর্ক হয়ে চলতে হবে, অন্যের সঙ্গে বিবাদ না করে। সবার সাথে মিলেমিশে দুঃখ সাগরে ভেসে থাকতে হবে। তাকে অবলম্বন করে টিকে থাকতে হবে। আর সেটি হবে উপযুক্ত, সংগত ও শ্রেয়।


(২) তদবিষয়ে যথােপযুক্ত আনুকুল্য করিব।-বক্তা কোন বিষয়ে আনুকুল্য করার প্রতিশ্রুতি দিলেন ?


উত্তর :-
ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর রচিত অদ্ভুত আতিথেয়তা' গল্পের বক্তা হলেন আরব সেনাপতি।
মুর সেনাপতি দিকভ্রষ্ট হয়ে ক্ষুধা-তৃষ্ণায় ক্লান্ত হয়ে,পথ পরিশ্রান্ত হয়ে পৌঁছান বিপক্ষীয় আরব শিবিরে।মূর সেনাপতির শারীরিক অবস্থা দেখে আরব সেনাপতি তাকে আশ্রয় দেন,ব্যবস্থা করেন আহারাদির।মূর সেনাপতির অশ্ব ক্লান্ত এবং হাত বীর্য ছিল। তদ্বিষয়ে বলতে মূর সেনাপতির জন্য তেজস্বী দ্রুতগামী ঘোড়ার ব্যবস্থা করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন যাতে তিনি সুরক্ষিতভাবে নিজ শিবিরে পৌঁছাতে পারেন।


(৩) এই রইল তােদের পিকনিক আমি চললাম।- বক্তা কে ? কেন তিনি পিকনিকে থাকতে চাননি।


উত্তর :-
নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায় রচিত 'বনভোজনের ব্যাপার' গল্পে বক্তা হলেন টেনিদা।
হাবুল সেন, টেনিদা বনভোজনের খাদ্য তালিকা তৈরি করছিল। হাবুলের পােলাও,ডিমের ডালনা, মাছ মাংসের কোর্মা প্রভৃতির কথা বলার মাঝখানে প্লে আলুভাজা,শুক্তো,বাটি চচ্চড়ি, কুমড়াের ছক্কার মত দেশী খাদ্যের কথা বলায় টেনিদার এগিয়ে যায় এবং তার কাছে মনে হয় এগুলাে নিম নিশিন্দা চেয়েও অখাদ্য। তাই টেনিদা পিকনিক ছেড়ে চলে যাওয়ার কথা বলেন।


(৪) পরবাসী কবে নিজ বাসভূমি গড়বে ?' -কবির মনে এমন প্রশ্ন জেগেছে কেন ?


উত্তর :-
আধুনিক যুগের অন্যতম শ্রেষ্ঠ কবি বিষ্ণু দে'পরবাসী' কবিতায় এদেশের সাধারণ মানুষের অনিবার্য পরিণতি কে ব্যক্ত করেছেন। আধুনিক সভ্যতার করাল থাবায় এদেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য কিভাবে ধ্বংস হচ্ছে,নিজেদের প্রয়োজনে বনকে ধ্বংস করে, বন্যপ্রাণীদের ধরে বিক্রি করে দিচ্ছে লােভী মানুষের দল। অর্থাৎ বর্তমান সভ্যতা ও সংস্কৃতির যে জীবনধারা ও অভিরুচি তা আমাদের চিরাচরিত সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য বিরােধী বলেই তা আমাদের কে নিজের দেশে পরবাসী করে রেখেছে। তাই কবি কার্যত আক্ষেপের সুরে প্রশ্ন করেছেন কবে আমরা আমাদের চিন্তা-চেতনা বিবেক-বুদ্ধি কাজে লাগিয়ে প্রকৃত অর্থে নিজ বাসভূমি গড়ে তুলব।


(৫) 'এইভাবে আমরা দেহরা-দুন এক্সপ্লেসের সেই থার্ড ক্লাস গাড়িখানিতে যেন এক পশতু সাহিত্য-গােষ্ঠী বা সম্মেলন লাগিয়ে দিলুম।' – লেখকের বক্তব্য অনুসরণে সেই পরিস্থিতির বিবরণ দাও

উত্তর :-
সুনীতিকুমার চট্টোপাধ্যায়ের পথ চলতি গদ্যাংশ কথক একথা বলেছেন ।
এখানে দেহরাদুন এক্সপ্রেস এর থেকে কলকাতা ফেরার কাহিনী বর্ণিত হয়েছে।অনেক সময় পথচলতি বিভিন্ন মানুষের সঙ্গে পারস্পরিক আলাপ-আলােচনার মাধ্যমে অকৃত্রিম আন্তরিকতা ফুটে ওঠে, সাহিত্যের স্বাদ ও মেলে।তেমনই এই গল্পে লেখক দেখিয়েছেন কথক নিজের বুদ্ধির দ্বারা সংরক্ষণ করা থার্ড ক্লাসে নিজের স্থান করে নেন,এবং তাদের সাথে সম্পর্ক স্থাপনের জন্য ফারসি ভাষায় কথা বলেন এবং তখনই পশতু সাহিত্য গােষ্ঠী বা সম্মেলন শুরু হয় খুশ হাল খাঁ খ্টকের গজল বিষয়ে প্রশ্নের মাধ্যমে। ঔরঙ্গজেবের সমকালীন এই কবি পশতু ভাষার সর্বশ্রেষ্ঠ কবি। লেখক এর আগ্রহে জনৈক যাত্রী গজল শােনালেন। এরপর হলাে আদম খান আর দুর খানির মহব্বতের কিপার কথা।শুধু লেখকই নন গাড়ির সমস্ত যাত্রীরা অবধারিতভাবে মন দিয়ে সেই কাহিনী শুনল।পাঠানের গলা যদিও কর্কশ, তবে সে গুরুগম্ভীর ভাবে কাহিনীটি কিছুটা গান করে আবার কিছুটা পাঠ করে সবাইকে মােহিত করে রাখল। এভাবে সেই তৃতীয় শ্রেণীর গাড়িতে গান,আবৃত্তি ও পাঠের যেন এক পশতু -সাহিত্য- গোষ্ঠী বা সম্মেলন হল।

(৬) এই সব আমার-ই হবে; আমাকে দেলেন বিধাতা ভাবনাটি কার? বিধাতা তাকে কি কি দেবেন বলে সে মনে করে ?

উত্তর :-
তারাপদ রায়ের লেখা 'একটি চড়ুই পাখি' কবিতায় ভাবনাটি এক | চড়ুই পাখির। চড়ুই পাখি কিভাবে ঘরে থাকা মানুষটি অর্থাৎ কথক চলে গেলে এই ঘর তার হয়ে যাবে।ঘরের জানলা, দরজা, টেবিল, ফুলদানি, বই খাতা সবই বিধাতা তাকে অর্থাৎ চড়ুই পাখি কে দিয়ে দেবেন।


(৭) দল বিশ্লেষণ করে মুক্তদল ও রুদ্ধদল চিহ্নিত করে – সম্ভাষণ।


উত্তর :-
সম্ভাষণ- সম(রুদ্ধ)+ ভা(মুক্ত)+ষণ(রুদ্ধ) দল। অর্থাৎ একটি মুক্ত দল 2 টি রুদ্ধদল।


(৮) উঠুন্তি মুলাে পত্তনে চেনা যায়' -প্রবাদটিকে ব্যবহার করে একটি বাক্য রচনা করাে।
উত্তর :-

উঠন্তি মুলাে পত্তনেই চেনা যায়-(শুরু দেখে ভবিষ্যৎ অনুমান করা যায়) ছেলেটি হরেন বাবুর পকেট কেটেছে এ বড় হলে নির্ঘাত পকেটমার হবে । এ যেন উঠন্তি মুলাে পত্তনে চেনা যায়।