অষ্টম শ্রেণীর ভূগোল মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক এর সমস্ত প্রশ্ন এবং উত্তর পার্ট 2 । Class 8 Geography Model Activity Task Part 2 । পৃথিবীর অভ্যন্তরে বিযুক্তিরেখা..। Newskatha.com

অষ্টম শ্রেণীর ভূগোল মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক এর সমস্ত প্রশ্ন এবং উত্তর পার্ট 2 । Class 8 Geography Model Activity Task Part 2 । পৃথিবীর অভ্যন্তরে বিযুক্তিরেখা..। Newskatha.com পৃথিবীর অভ্যন্তরে বিযুক্তিরেখা থাকার কারণ কী ? অপসারী পাতসীমানাকে গঠনকারী পাতসীমানা বলা হয় কেন ? মৃত্তিকা সৃষ্টিতে খনিজের ভূমিকা ব্যাখ্যা করাে। ভারতকে কেন উপমহাদেশ বলা হয় ?
আজকে আমরা আলোচনা করব অষ্টম শ্রেণীর ভূগোল মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক এর সমস্ত প্রশ্ন এবং উত্তর নিয়ে পার্ট 2


অষ্টম শ্রেণীর ভূগোল মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক এর সমস্ত প্রশ্ন এবং উত্তর পার্ট 2


 অষ্টম শ্রেণীর ভূগোল মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক এর সমস্ত প্রশ্ন এবং উত্তর পার্ট 2 । Class 8 Geography Model Activity Task Part 2 । পৃথিবীর অভ্যন্তরে বিযুক্তিরেখা..। Newskatha.com


নীচের প্রশ্নগুলির উত্তর লেখাে :


১. পৃথিবীর অভ্যন্তরে বিযুক্তিরেখা থাকার কারণ কী ?

উত্তর :-
ভূপৃষ্ঠ থেকে কেন্দ্র পর্যন্ত একেক জায়গায় একেক রকম ভূমিকম্পের তরঙ্গের গতিবেগ হয়। এই ভূমিকম্পের তরঙ্গ বেগের পার্থক্যের ভিত্তি করে যে রেখার দ্বারা দুটো আলাদা তরঙ্গ বেগ যুক্ত অঞ্চল কে আলাদা করা হয়েছে। যেহেতু ভূ-অভ্যন্তরের একেক জায়গায় উপাদান ও ঘনত্ব আলাদা সেই আলাদা আলাদা উপদান ও ঘনত্বের কথা মাথাই রেখে ভূ - অভ্যন্তরে বিভিন্ন ধরনের বিযুক্ত রেখা কল্পনা করা হয়েছে ।

২. অপসারী পাতসীমানাকে গঠনকারী পাতসীমানা বলা হয় কেন ?

উত্তর :- অপসারি পাত সীমানা বরাবর দুটি পাত পরস্পরের থেকে দূরে সরে গেলে মাঝের ফাটল বরাবর অভ্যন্তর থেকে উত্তপ্ত গলিত পদার্থ উঠে এসে শীতল ও কঠিন হয়ে নতুন মহাসাগরীয় ত্বক আর মধ্য সামুদ্রিক | শৈলশিরা (Mid Oceanic Ridge) তৈরি হয়। এ কারণে এই ধরনের অপসারী পাত সীমানা কে গঠনকারী পাত সীমানা বলে।

৩. মৃত্তিকা সৃষ্টিতে খনিজের ভূমিকা ব্যাখ্যা করাে।


উত্তর :- মৃত্তিকা সৃষ্টিতে খনিজের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বিভিন্ন ধরনের খনিজ পদার্থ ধীরে ধীরে মাটি বা মিতৃকা সৃষ্টিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। শিলার মধ্যে অবস্থিত কেলাসিত নির্দিষ্ট রাসায়নিক সংযুক্তি বিশিষ্ট নির্দিষ্ট পারমাণবিক গঠন যুক্ত মৌলিক বা যৌগিক পদার্থ হল খনিজ। কিছু গুরুত্বপূর্ণ খনিজ হলো - কোয়ারটস , ফেল্ডসপার , অভ্র জিপসাম প্রভৃতি। বিভিন্ন অঞ্চলে বিভিন্ন খনিজের প্রভাব এর দরুন মাটির রং ও প্রকার বিভিন্ন হয়। যেমন কালো মাটি, লাল মাটি বেলে মাটি ও পলিমাটির নাম দেওয়া যেতে পারে।

৪. ভারতকে কেন উপমহাদেশ বলা হয় ?

উত্তর :-
ভারত ও তার প্রতিবেশী দেশ অর্থাৎ চীন, নেপাল, ভুটান, বাংলাদেশ, মায়ানমার, পাকিস্তান আফগানিস্তান ও শ্রীলংকার মধ্যে সামাজিক মিল খুব বেশি। আয়তন ও জনসংখ্যার বিচারে প্রথম স্থানাধিকারী ভারত এই অঞ্চলের কেন্দ্রবিন্দু। এই অঞ্চলের জলবায়ু এক অন্য ধরনের বৈচিত্রের অধিকার লাভ করেছে । এখানকার বৈষম্যমূলক আবহাওয়া, প্রচুর পরিমাণে জনসংখ্যা ও জন ঘনত্ব, সাংস্কৃতিক বৈচিত্র, এবং অন্যান্য যেসকল বৈচিত্র একটা বিশাল আকার মহাদেশের মধ্যে থাকে, তার বেশিরভাগ বৈচিত্র এই ভারত ও তার আশেপাশের অঞ্চলের মধ্যে রয়েছে। তাই ভারতকে উপমহাদেশ বলা হয় ।