নবম শ্রেণীর ইতিহাস বিংশ শতকে ইউরোপ অধ্যায়ের কিছু গুরত্ব পূর্ণ প্রশ্ন ও উত্তর । Class 9 History Question and Answer

আজকে আমরা নবম শ্রেণীর ইতিহাস বিংশ শতকে ইউরোপ অধ্যায় থেকে কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন উত্তর নিয়ে আলোচনা করব। নবম শ্রেণীর ইতিহাস পরীক্ষার প্রশ্ন গুলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ


নবম শ্রেণীর ইতিহাস বিংশ শতকে ইউরোপ অধ্যায়ের কিছু গুরত্ব পূর্ণ প্রশ্ন ও উত্তর



নবম শ্রেণীর ইতিহাস বিংশ শতকে ইউরোপ অধ্যায়ের কিছু গুরত্ব পূর্ণ প্রশ্ন ও উত্তর । Class 9 History Question and Answer


1. রাশিয়ায় ভূমিদাসদের মুক্তির কয়েকটি কারণ উল্লেখ করাে।

উত্তর - রাশিয়ায় ভূমিদাসদের মুক্তির কয়েকটি কারণ ছিল [1] রাশিয়ায় শিল্পায়ন শুরু হলে ভূমিদাস নয়, দক্ষ ও স্বাধীন শ্রমিকের প্রয়ােজন হয়। [2] ভূমিদাসরা আধুনিক বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে চাষাবাদে অদক্ষ ছিল। [3] ভূমিদাস রক্ষণের ফলে জমিদাররা বাণিজ্যক্ষেত্রে ক্রমে পিছিয়ে পড়ছিল |[4] ক্রিমিয়ার যুদ্ধে (১৮৫৪-৫৬ খ্রি.) অদক্ষ ভূমিদাস সেনাদের অংশগ্রহণের ফলে রাশিয়ার পরাজয় ঘটে।


2. ‘নারোদনিক আন্দোলন' কী ?

উত্তর - রুশ শব্দ নারােদ থেকেই 'নারােদনিক' শব্দের উৎপত্তি রুশ ভাষায় এর অর্থ ‘জনগণ’ । ১৮৭৪ খ্রিস্টাব্দে রাশিয়ার বুদ্ধিজীবী সম্প্রদায় কর্তৃক কৃষকদের অবস্থার উন্নতির জন্য যে আন্দোলন সংঘটিত হয় তা 'জনগণের আন্দোলন বা ‘নারােদনিক আন্দোলন' নামে পরিচিত।

3. ১৮৬১ খ্রিস্টাব্দে ভূমিদাসদের মুক্তির ঘােষণাপত্রে কী বলা হয়েছিল?

উত্তর - রুশ জার দ্বিতীয় আলেকজান্ডার ১৮৬১ খ্রিস্টাব্দে ভূমিদাসদের মুক্তির ঘােষণাপত্র' জারি করেন। এই ঘােষণাপত্রে বলা হয়[1] সামন্তপ্রভুদের অরধীনতা থেকে ভূমিদাসরা মুক্তি - পাবে। [2] মুক্ত ভূমিদাসদের ওপর সামন্তপ্রভুদের কোনাে অধিকার থাকবে না। [3] মুক্ত ভূমিদাসরা স্বাধীন নাগরিকের মর্যাদা ও অধিকার পাবে। [4] প্রভুর জমির অর্ধাংশ তার অধীনতা থেকে মুক্তিপ্রাপ্ত ভূমিদাসদের দেওয়া হবে। [5] জমিদার তার হারানাে জমির জন্য ক্ষতিপূরণ পাবেন।

4. ভূমিদাসদের মুক্তির ঘােষণাপত্রের সুফলগুলি কী ছিল ?

উত্তর - রাশিয়ায় ভূমিদাসদের মুক্তির ফলে [1] মধ্যযুগীয় কুপ্রথার অবসান ঘটে। [2] কৃষির উন্নতি ঘটে। [3] কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধির ফলে বাণিজ্য বৃদ্ধি পায়। [4] শিল্পক্ষেত্রে স্বাধীন শ্রমিকের জোগান বৃদ্ধির ফলে শিল্পের বিকাশ শুরু হয়।

5. ভূমিদাসদের মুক্তির ঘােষণাপত্রের ত্রুটি/কুফলগুলি কী ছিল?

উত্তর - রাশিয়ায় ভূমিদাসদের মুক্তির ঘােষণাপত্রের দ্বারা [1] কৃষকদের প্রাপ্ত জমির জন্য ন্যায্য মূল্যের চেয়ে অনেক বেশি মূল্য আদায় করা হয়। [2] কৃষকদের ভাগে নিকৃষ্ট জমিগুলি পড়ে। [3] কৃষকরা জমি পেলেও তারা জমির মালিকানা পায়নি। [4] কৃষকদের ওপর গ্রামীণ মিরগুলির আধিপত্য প্রতিষ্ঠিত হয়।

6. ১৯১৭ খ্রিস্টাব্দে রুশ বিপ্লবের কারণগুলি উল্লেখ করাে।

উত্তর - রাশিয়ায় নভেম্বর বিপ্লবের প্রধান কারণগুলি ছিল [1] জারতন্ত্রের সীমাহীন স্বৈরাচার, [2] রাশিয়ার মানুষের অধিকারহীনতা, [3] জারের বেত্রাঘাত, জেল, নির্বাসন প্রভৃতি অমানবিক অত্যাচার, [4] প্রশাসনে রাসপুটিন নামে এক ভণ্ড সন্ন্যাসীর সীমাহীন প্রভাব, [5] প্রথম বিশ্বযুদ্ধে রাশিয়ার ব্যর্থতার ফলে দেশবাসীর ক্ষোভ, [6] অ - রুশ জাতিগুলির ওপর জারের রুশীকরণ নীতি চাপানাে, [7] কৃষক ও শ্রমিকদের দুর্দশা, [8] ১৯০৫ খ্রিস্টাব্দের বিপ্লবের অনুপ্রেরণা প্রভৃতি।


7. রাশিয়ার 'ফেব্রুয়ারি বিপ্লব (১৯১৭ খ্রি.) বলতে কী বােঝ?
অথবা, রাশিয়ার 'মার্চ বিপ্লব (১৯১৭ খ্রি.) বলতে কী বােঝ?

উত্তর - রুশ আইনসভার (ডুমা) বুর্জোয়া নেতৃবৃন্দ ১৯১৭ খ্রিস্টাব্দের মার্চ মাসে প্রিন্স লুভ এর নেতৃত্বে রাশিয়ায় একটি অস্থায়ী প্রজাতান্ত্রিক সরকার গঠনের মাধ্যমে দেশের শাসনক্ষমতা দখল করে | এই ঘটনা মার্চ বিপ্লব" নামে পরিচিত। রাশিয়ার পুরােনাে ক্যালেন্ডার অনুসারে ফেব্রুয়ারি মাসে এই ঘটনা ঘটেছিল বলে এটি "ফেব্রুয়ারি বিপ্লব' নামেও পরিচিত।

8. এপ্রিল থিসিস' কী?

উত্তর - রাশিয়ায় ১৯১৭ খ্রিস্টাব্দের মার্চ বিপ্লবের দ্বারা বুর্জোয়া শ্রেণি শাসনক্ষমতা দখল করে। এই সময় বলশেভিক নেতা লেনিন নির্বাসন থেকে রাশিয়ায় ফিরে বলশেভিক কর্মীদের সামনে ১৬ এপ্রিল (১৯১৭ খ্রি.) তার নিজস্ব চিন্তাধারা তুলে ধরেন। এটি এপ্রিল থিসিস বা এপ্রিল মতবাদ" নামে পরিচিত। এই মতবাদে তিনি বুর্জোয়াদের হাত থেকে বলশেভিক কর্মীদের ক্ষমতা কেড়ে নিতে বলেন।

9. উইলসনের চোদ্দো দফা নীতির ত্রুটিবিচ্যুতি উল্লেখ করো ।
অথবা, উইলসনের চোদ্দো দফা শর্তের বিপক্ষে যুক্তি দাও ।

উত্তর - আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠা, গণতন্ত্রের প্রসার, যুদ্ধ-বিধ্বস্ত ইউরােপের যথাযথ পুনর্গঠন প্রভৃতি সুমহান উদ্দেশ্যগুলি নিয়ে মার্কিন রাষ্ট্রপতি উড্রো উইলসন ১৯১৮ খ্রিস্টাব্দের ৮ জুন তার বিখ্যাত ‘চোদ্দো দফা নীতি ঘোষণা করেন |

চোদ্দো দফা নীতির ত্রুটিবিচ্যুতি/বিপক্ষে যুক্তি

বিভিন্ন মহান উদ্দেশ্য নিয়ে চোদ্দো দফা নীতি ঘোষিত হলেও বাস্তবক্ষেত্রে এই নীতিতে বিভিন্ন ত্রুটিবিচ্যুতি লক্ষ করা যায় যেমন -

1. অবাস্তবতা: উইলসনের চোদ্দো দফা শর্তের অধিকাংশই ছিল অস্পষ্ট এবং গালভরা আদর্শবাদী তত্বকথায় পরিপূর্ণ। এগুলি বাস্তবে কার্যকর করা কোনােভাবেই সম্ভব ছিল না।

2. গােপন চুক্তির সমস্যা : প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় বিভিন্ন দেশ গােপন চুক্তিতে আবদ্ধ হয়েছিল। উইলসনের চোদ্দো দফার শর্তগুলি বহু ক্ষেত্রেই সেসব গােপন চুক্তির শর্তের বিরােধী ছিল। তাই যুদ্ধের পর চোদ্দো দফার শর্ত ও গােপন চুক্তিগুলির শর্তের মধ্যে বিরােধ বাধে।

3. স্বার্থপরতা: চোদ্দো দফা শর্তে যেসব মহান আদর্শবাদের কথা বলা হয়েছিল তা উপেক্ষা করে বহু রাষ্ট্র নিজ নিজ সংকীর্ণ স্বার্থপূরণেই বেশি আগ্রহী ছিল।

4. মার্কিন স্বার্থ: মার্কিন রাষ্ট্রপতি উড্রো উইলসন সম্পূর্ণ নিঃস্বার্থভাবে শুধুমাত্র বিশ্বশান্তি এবং গপতন্ত্র প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্যে চোদ্দো দফা শর্ত ঘােষণা করেন, এমন কথা বলা যায় না। কেউ কেউ মনে করেন যে, এই ঘােষণার দ্বারা ইউরােপে শক্তিসাম্য প্রতিষ্ঠা করে আমেরিকা নিজের নিরাপত্তা সুদৃঢ় করতে চেয়েছিল।