সপ্তম শ্রেণীর ভূগোল মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক পার্ট 4 । Class 7 Geography Model Activity Task Part 4 New. 2021 । এশিয়া মহাদেশের নিরক্ষীয় ও উষ্ণ মরু জলবায়ু স্বাভাবিক......

সপ্তম শ্রেণীর ভূগোল মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক 2021 এর পার্ট 4 এর প্রশ্ন এবং উত্তর নিয়ে আজকে আমরা আলোচনা করব চলো শুরু করা যাক ।


সপ্তম শ্রেণীর ভূগোল মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক পার্ট 4

সপ্তম শ্রেণীর ভূগোল নতুন 2021 এর মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক



১. বিকল্পগুলি থেকে ঠিক উত্তরটি নির্বাচন করে লেখো :


১.১. সূর্যের উত্তরায়নের সময়কাল -


ক) ২১শে জুন থেকে ২২ শে ডিসেম্বর
খ) ২৩ শে সেপ্টেম্বর থেকে ২১ শে মার্চ
গ) ২২শে ডিসেম্বর থেকে ২১ শে জুন
ঘ) ২১শে মার্চ থেকে ২৩ শে সেপ্টেম্বর

উত্তর - ২২শে ডিসেম্বর থেকে ২১ শে জুন সূর্যের উত্তরায়নের সময়কাল

১.২. কোনো মানচিত্রে সমচাপরেখাগুলি খুব কাছাকাছি অবস্থান করলে সেখানে -


ক) বায়ুর চাপ বেশি হয়
খ) বায়ুর চাপের পার্থক্য বেশি হয়
গ) বায়ুর চাপ কম হয়
ঘ) বায়ুর চাপের পার্থক্য কম হয়।

উত্তর - মানচিত্রে সমচাপরেখাগুলি খুব কাছাকাছি অবস্থান করলে সেখানে বায়ুর চাপের পার্থক্য বেশি হয় ।

১.৩. টোকিও ইয়োকোহামা শিল্পাঞ্চলের উন্নতির অন্যতম প্রধান কারণ হলো -


ক) খনিজ ও শক্তি সম্পদের সহজলভ্যতা
খ) স্বল্প জনঘনত্ব
গ) উন্নত প্রযুক্তি ও দক্ষ শ্রম
ঘ) সমুদ্র থেকে দূরবর্তী স্থানে অবস্থান

উত্তর - টোকিও ইয়োকোহামা শিল্পাঞ্চলের উন্নতির অন্যতম প্রধান কারণ হলো উন্নত প্রযুক্তি ও দক্ষ শ্রম

২. উপযুক্ত শব্দ বসিয়ে শূন্যস্থান পূরণ করো :

২.১. নিরক্ষরেখা থেকে মেরুর দিকে অক্ষরেখার পরিধি ক্রমশ_____________থাকে।


উত্তর - কমতে থাকে

২.২. বায়ুতে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ কমে গেলে বায়ুর চাপ_______________পায়।


উত্তর - বৃদ্ধি পায় ।

২.৩. এশিয়া মহাদেশের একটি উত্তরবাহিনী নদী হলো____________।


উত্তর - লেনা নদী ।

৩. সংক্ষিপ্ত উত্তর দাও :

৩.১. কোন তারিখকে কর্কট সংক্রান্তি বলা হয় ও কেন?


উত্তর - ২১ শে জুন তারিখকে "কর্কট সংক্রান্তি" বলা হয়।কারণ:২১ শে জুন পৃথিবী নিজের কক্ষপথের এমন একটা জায়গায় আসে যে, উত্তর গোলার্ধে কর্কটক্রান্তি রেখার (23½° উত্তর অক্ষরেখা)ওপর লম্বভাবে সূর্যরশ্মি পড়ে।এই দিন উত্তর গোলার্ধে সব থেকে বড় দিন আর দক্ষিণ গোলার্ধে সবথেকে ছোট দিন হয়।সুমেরুবৃত্তে 24 ঘন্টায় সূর্যকে দেখা যায় আর কুমেরু বৃত্তে 24 ঘন্টাই অন্ধকার থাকে;এজন্যই এই তারিখকে "কর্কট সংক্রান্তি" বলা হয়।


৩.২. মেরু অঞ্চল ও নিরক্ষীয় অঞ্চলে বায়ুর উষ্ণতার তারতম্য কীভাবে দুই অঞ্চলের বায়ুচাপকে নিয়ন্ত্রণ করে তা ব্যাখ্যা করো।


উত্তর - বায়ুর উষ্ণতার পরিবর্তন হলে বায়ুর আয়তন ও ঘণত্বেরও পরিবর্তন হয়।যেমন-বায়ু উত্তপ্ত হলে বায়ুর অনুগুলির গতিবেগ বৃদ্ধি পায় এবং পরস্পর পরস্পরের থেকে দূরে সরে যায়।এভাবে উষ্ণ বায়ু হালকা হয়ে প্রসারিত হয় এবং উপরে উঠে যায়।বায়ুর ঘনত্ব কমে যায় অর্থাৎ নির্দিষ্ট আয়তনের বায়ুতে অনুর সংখ্যাও কমে যায় ফলে বায়ুচাপ কমে যায়।বায়ু শীতল হলে সংকুচিত হয় ফলস্বরূপ বায়ুর ঘনত্ব বেড়ে যায়।তাই বায়ুর চাপও বেড়ে যায়। একারণেই শীতল মেরু অঞ্চলে বায়ুর চাপ বেশী এবং উষ্ণনিরক্ষীয় অঞ্চলে বায়ুর চাপ কম হয়।


৪. এশিয়া মহাদেশের নিরক্ষীয় ও উষ্ণ মরু জলবায়ু স্বাভাবিক উদ্ভিদের চরিত্রকে কীভাবে প্রভাবিত করে তা আলোচনা করো।


উত্তর - নিরক্ষরেখার 10° উত্তর অক্ষরেখা থেকে 10° দক্ষিণ অক্ষরেখার মধ্যে এশিয়া মহাদেশের ইন্দোনেশিয়া,মালদ্বীপ,শ্রীলঙ্কা,সিঙ্গাপুর প্রভৃতি দেশে নিরক্ষীয় জলবায়ু দেখা যায়। নিরক্ষীয় জলবায়ুর স্বাভাবিক উদ্ভিদের ওপর প্রভাব:নিরক্ষীয় অঞ্চলে বেশি উষ্ণতা ও বেশি বৃষ্টিপাত এর জন্য ঘন চিরহরিৎ বা চিরসবুজ গাছ দেখা যায়। যেমন-মেহগনি,রোজউড,আয়রন উড, সেগুন,রবার, সিঙ্কোনা ইত্যাদি উদ্ভিদ।


এশিয়া মহাদেশের অন্তর্গত আরবের মরুভূমি,ভারত ও পাকিস্তানের থর মরুভূমি,ইরাক,ইরান এবং কুয়েত; এইসব দেশগুলোর উষ্ণতা খুব বেশি ও বৃষ্টিপাত খুব কম। তাই এখানে উষ্ণ মরু প্রকৃতির চরমভাবাপন্ন জলবায়ু দেখা যায়।


উষ্ণ মরু জলবায়ুর স্বাভাবিক উদ্ভিদের ওপর প্রভাব:- এই মরুভূমি অঞ্চলে সাধারণত কাঁটা জাতীয় গাছ জন্মায়(ক্যাকটাস)যেমন-বাবলা,ফনিমনসা,খেজুর ইত্যাদি।বৃষ্টিপাত কম হওয়ার জন্য গাছগুলির কাণ্ড ও পাতায় মোম জাতীয় পদার্থ দিয়ে ঢাকা থাকে যেনো বস্পমোচন প্রক্রিয়ায় গাছের জল বেরিয়ে না যায়।